Dhaka , Saturday, 18 May 2024
নিবন্ধন নাম্বারঃ ১১০, সিরিয়াল নাম্বারঃ ১৫৪, কোড নাম্বারঃ ৯২
শিরোনাম ::
নির্বাচনী প্রচারণার সময় ককটেল বিস্ফোরনের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন।। সড়কের শৃংখলা নিয়ে মতবিনিময় করেছেন ওয়ারী ট্রাফিক পুলিশ।। রূপগঞ্জে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থীর পক্ষে প্রচারনা।। সুন্দরগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন চেয়ারম্যান প্রার্থী সফিউল ইসলাম।। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে দুর্গাপুরে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত।। আনোয়ার খাঁন মডার্ণ ডায়াগনস্টিক সেন্টার রামগঞ্জ শাখার শুভ উদ্বোধন।।  প্রধানমন্ত্রীর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে ইবিতে ছাত্রলীগের আনন্দ মিছিল।। তিতাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত।। যমুনায় সিবিএ নির্বাচন- রবিউল সভাপতি শাহজাহান সম্পাদক নির্বাচিত।। আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব হলেন রামগঞ্জের কৃতি সন্তান আবদুর রহমান খাঁন।। মোরেলগঞ্জের পোলেরহাট বাজারে আগুনে ১১ টি দোকান পুড়ে ছাই-ক্ষতির পরিমান কোটি টাকা।। শরীয়তপুরে রাসেলস ভাইপার সাপ পিটিয়ে মারলো কৃষকরা।। ২২ বছর পর স্ত্রী হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত স্বামী গ্রেপ্তার।। জাজিরায় মাতৃদুগ্ধ বিষয়ে অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত।। ধামরাই সরকারি কলেজের অনার্স ৪র্থ বর্ষের শিক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠিত।। মোরেলগঞ্জে তরুণ সংঘ ক্লাবের উদ্যোগে অধ্যক্ষ শাহাবুদ্দিন তালুকদারের স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত।। পাবনায় ফ্যানের বাতাসে ধান উড়াতে গি‌য়ে কৃষকের মৃত্যু।। মাদারীপুরে ভোক্তা অধিকারে অভিযান- দুই ব্যবসায়ীকে জরিমানা।। মোটরসাইকেল মার্কার উৎসবমুখর উঠান বৈঠক।। নারায়ণগঞ্জ টিভি সাংবাদিক ফোরামের ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা।। জাজিরা পৌর সড়কে বছর পেরোলেও আলোর মুখ দেখেনি আলোকসজ্জা প্রকল্প।। রামগঞ্জে আনারস প্রতীকের উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত।। পাবনায় পানি উন্নয়ন বোর্ডে -পাউবো- কর্মরত ৩৭ কর্মকর্তা-কর্মচারী একযোগে বদলি আবেদনে সমালোচনার ঝড়।। মোংলায় বীর মুক্তিযোদ্ধা আ: হামিদ শেখ কে গার্ড অব অনার।। দেবহাটায় পুষ্টি সপ্তাহ উদ্যাপন।। সখিপুর ইউনিয়ন স্ট্যান্ডিং কমিটির সভা।। দেবহাটা বাল্যবিবাহ ও নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে সভা।।  ঘুম থেকে উঠছে দেখতাম অস্ত্র আমাদের দিকে তাককরা- নাবিক রাজু।। দাউদকান্দিতে আইফোন না পেয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে এক কিশোরের আত্মহত্যা।। আটঘরিয়ায় হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে মোটরসাইকেল-ঘোড়া।।

ধারণ ক্ষমতার তিন গুণ বেশি রোগী হাসপাতালে-দর্শনার্থী সামলাতে হিমশিম।।

  • Reporter Name
  • আপডেট সময় : 04:46:21 am, Wednesday, 24 April 2024
  • 22 বার পড়া হয়েছে

ধারণ ক্ষমতার তিন গুণ বেশি রোগী হাসপাতালে-দর্শনার্থী সামলাতে হিমশিম।।

জেলা প্রতিনিধি-শরীয়তপুর।।
তাপ প্রবাহের কারণে দেশে হিট এলার্ট জারি করেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। অতিরিক্ত গরমে অসুস্থ্য হয়ে গত এক সপ্তাহ ধরে ধারণ ক্ষমতার তিন গুণ বেশি রোগী ভর্তি হয়েছে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে। জনবল সংকটের কারণে ধারণ ক্ষমতার তিন গুণ বেশি রোগীর সেবা দিতে গিয়ে হিমশিম খেতে হচ্ছে চিকিৎসকসহ অন্যান্যদের। গরমে অসুস্থ্য হয়ে পড়া শিশু, বৃদ্ধদের সঙ্গে দেখা করতে হাসপাতালে প্রতিদিনই ভীর জমাচ্ছেন আত্মীয় স্বজনসহ দর্শনার্থীরা। এতে ব্যহত হচ্ছে চিকিৎসা সেবা। দর্শনার্থীর সংখ্যা নিয়ন্ত্রণে নিতে আইন শৃঙ্খলা বাহীনির সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।
মঙ্গলবার-২৩ এপ্রিল-সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায় প্রত্যেক রোগীর সঙ্গে দর্শনার্থী হিসেবে অতিরিক্ত ৫ থেকে ৬ জন স্বজন ভীর করে আছেন।
হাসপতাল কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা যায়, রমজানের ঈদের পরে দেশের অন্যান্য জেলার মতো শরীয়তপুরেও চলছে তাপ প্রবাহ। তাপ প্রবাহের কারণে অসুস্থ্য হয়ে প্রতিদিন প্রায় ২৫০ থেকে ৩০০ জন রোগী নতুন করে ভর্তি হচ্ছেন। এছাড়াও বর্হিবিভাগে চিকিৎসা নিচ্ছেন প্রায় পাঁচ শতাধিক রোগী। হাসপাতালটিতে সব মিলিয়ে প্রতিদিন ৮০০ থেকে ৯০০ রোগীকে সেবা প্রদান কার্যক্রম চলছে। অথচ হাসপাতালটির শয্যা সংখ্যা মাত্র ১০০ জনের। ধারণ ক্ষমতার চেয়ে তিন গুণেরও অধিক রোগীকে সেবা প্রদান করতে একদিকে যেমন কষ্ট হয়ে পড়ছে চিকিৎসকসহ সংশ্লিষ্টদের। অন্যদিকে প্রতিদিন প্রত্যেক রোগীর সঙ্গে ৫ থেকে ৬ জন দর্শনার্থী আসেন দেখা করতে। এতে হাসপাতালের চিকিৎসা সেবা ব্যহত হওয়ার পাশাপাশি বেড়েছে চুরিসহ অন্যান্য অপরাধমূলক কার্যক্রম। বিষয়টি সামলাতে হাসপাতালের পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ করতে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে। এরপর মঙ্গলবার দুপুরে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর জেলা কমান্ড্যান্ট মইনুল ইসলাম হাসপাতালটিতে পরিদর্শনে আসেন। এসময় দেখা যায়, প্রত্যেক রোগীর সঙ্গে কমপক্ষে ৩ থেকে ৬ জন দর্শনার্থী রয়েছেন।
বিষয়টি নিয়ে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর শরীয়তপুর জেলা কমান্ড্যান্ট মইনুল ইসলাম বলেন-জেলা প্রশাসক মহদোয় আমাকে জানিয়েছেন হাসপতালে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ব্যহত হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে সরেজমিনে পরিদর্শনে এসে দেখলাম যত্রতত্র গাড়ি পাকিং করা, রোগীর সঙ্গে প্রয়োজনের অতিরিক্ত একাধিক দর্শনার্থী। এতে চিকিৎসা সেবা প্রদান করতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের হিমশিম খাওয়ারই কথা। অতিরিক্ত গরমে একদিকে রোগী বেড়েছে, অন্যদিকে দর্শনার্থীর সংখ্যাও বেড়েছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ লিখিত ভাবে আনসার বাহিনীর সহযোগিতা চাইলে আমি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানাব-তারা ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।
শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. হাবিবুর রহমান বলেন, অতিরিক্ত গরমে অনেক মানুষ অসুস্থ্য হয়ে পড়ছেন। এতে ধারণ ক্ষমতার তিন গুণ বেশি রোগীকে সেবা দিতে হচ্ছে আমাদের। এছাড়াও প্রতিদিন প্রত্যেক রোগীর সঙ্গে ৫ থেকে ৬ জন দর্শনার্থী বিনা কারণেই এসে ভীর করছেন। এমনিতেই ১০০ এর জায়গায় ৮০০ থেকে ৯০০ রোগীর সেবা করতে হচ্ছে-তার ওপর এসব দর্শনার্থীর কারণে আমাদের বিভিন্ন ভাবে সমস্যা হচ্ছে। বিষয়টি জেলা প্রশাসককে জানিয়েছিলাম। এরপর আনসার বাহিনীর কমান্ড্যান্ট এসেছেন পরিদর্শনে। আগামী অর্থ বছর থেকে আনসার সদস্যদের নিয়োগ করতে পারব। কিন্তু এই মুহুর্তে যে অবস্থা-তাতে প্রতিদিন যদি কিছু সময়ের জন্যও তারা এসে আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে রাখে-তাহলে আমরা সুন্দর ভাবে চিকিৎসা সেবা প্রদান করতে পারব।

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল ও অন্যান্য তথ্য সঞ্চয় করে রাখুন

জনপ্রিয় সংবাদ

রূপগঞ্জে বস্ত্র ও পাটমন্ত্রীর নির্দেশে নির্মিত চার সড়কের উদ্বোধন।।

পেকুয়ায় বেড়িবাঁধ ভেঙে লোকালয়ে প্লাবিত,২ শত পরিবার পানিবন্দী।।

নির্বাচনী প্রচারণার সময় ককটেল বিস্ফোরনের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন।।

ধারণ ক্ষমতার তিন গুণ বেশি রোগী হাসপাতালে-দর্শনার্থী সামলাতে হিমশিম।।

আপডেট সময় : 04:46:21 am, Wednesday, 24 April 2024
জেলা প্রতিনিধি-শরীয়তপুর।।
তাপ প্রবাহের কারণে দেশে হিট এলার্ট জারি করেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। অতিরিক্ত গরমে অসুস্থ্য হয়ে গত এক সপ্তাহ ধরে ধারণ ক্ষমতার তিন গুণ বেশি রোগী ভর্তি হয়েছে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে। জনবল সংকটের কারণে ধারণ ক্ষমতার তিন গুণ বেশি রোগীর সেবা দিতে গিয়ে হিমশিম খেতে হচ্ছে চিকিৎসকসহ অন্যান্যদের। গরমে অসুস্থ্য হয়ে পড়া শিশু, বৃদ্ধদের সঙ্গে দেখা করতে হাসপাতালে প্রতিদিনই ভীর জমাচ্ছেন আত্মীয় স্বজনসহ দর্শনার্থীরা। এতে ব্যহত হচ্ছে চিকিৎসা সেবা। দর্শনার্থীর সংখ্যা নিয়ন্ত্রণে নিতে আইন শৃঙ্খলা বাহীনির সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।
মঙ্গলবার-২৩ এপ্রিল-সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায় প্রত্যেক রোগীর সঙ্গে দর্শনার্থী হিসেবে অতিরিক্ত ৫ থেকে ৬ জন স্বজন ভীর করে আছেন।
হাসপতাল কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা যায়, রমজানের ঈদের পরে দেশের অন্যান্য জেলার মতো শরীয়তপুরেও চলছে তাপ প্রবাহ। তাপ প্রবাহের কারণে অসুস্থ্য হয়ে প্রতিদিন প্রায় ২৫০ থেকে ৩০০ জন রোগী নতুন করে ভর্তি হচ্ছেন। এছাড়াও বর্হিবিভাগে চিকিৎসা নিচ্ছেন প্রায় পাঁচ শতাধিক রোগী। হাসপাতালটিতে সব মিলিয়ে প্রতিদিন ৮০০ থেকে ৯০০ রোগীকে সেবা প্রদান কার্যক্রম চলছে। অথচ হাসপাতালটির শয্যা সংখ্যা মাত্র ১০০ জনের। ধারণ ক্ষমতার চেয়ে তিন গুণেরও অধিক রোগীকে সেবা প্রদান করতে একদিকে যেমন কষ্ট হয়ে পড়ছে চিকিৎসকসহ সংশ্লিষ্টদের। অন্যদিকে প্রতিদিন প্রত্যেক রোগীর সঙ্গে ৫ থেকে ৬ জন দর্শনার্থী আসেন দেখা করতে। এতে হাসপাতালের চিকিৎসা সেবা ব্যহত হওয়ার পাশাপাশি বেড়েছে চুরিসহ অন্যান্য অপরাধমূলক কার্যক্রম। বিষয়টি সামলাতে হাসপাতালের পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ করতে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে। এরপর মঙ্গলবার দুপুরে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর জেলা কমান্ড্যান্ট মইনুল ইসলাম হাসপাতালটিতে পরিদর্শনে আসেন। এসময় দেখা যায়, প্রত্যেক রোগীর সঙ্গে কমপক্ষে ৩ থেকে ৬ জন দর্শনার্থী রয়েছেন।
বিষয়টি নিয়ে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর শরীয়তপুর জেলা কমান্ড্যান্ট মইনুল ইসলাম বলেন-জেলা প্রশাসক মহদোয় আমাকে জানিয়েছেন হাসপতালে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ব্যহত হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে সরেজমিনে পরিদর্শনে এসে দেখলাম যত্রতত্র গাড়ি পাকিং করা, রোগীর সঙ্গে প্রয়োজনের অতিরিক্ত একাধিক দর্শনার্থী। এতে চিকিৎসা সেবা প্রদান করতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের হিমশিম খাওয়ারই কথা। অতিরিক্ত গরমে একদিকে রোগী বেড়েছে, অন্যদিকে দর্শনার্থীর সংখ্যাও বেড়েছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ লিখিত ভাবে আনসার বাহিনীর সহযোগিতা চাইলে আমি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানাব-তারা ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।
শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. হাবিবুর রহমান বলেন, অতিরিক্ত গরমে অনেক মানুষ অসুস্থ্য হয়ে পড়ছেন। এতে ধারণ ক্ষমতার তিন গুণ বেশি রোগীকে সেবা দিতে হচ্ছে আমাদের। এছাড়াও প্রতিদিন প্রত্যেক রোগীর সঙ্গে ৫ থেকে ৬ জন দর্শনার্থী বিনা কারণেই এসে ভীর করছেন। এমনিতেই ১০০ এর জায়গায় ৮০০ থেকে ৯০০ রোগীর সেবা করতে হচ্ছে-তার ওপর এসব দর্শনার্থীর কারণে আমাদের বিভিন্ন ভাবে সমস্যা হচ্ছে। বিষয়টি জেলা প্রশাসককে জানিয়েছিলাম। এরপর আনসার বাহিনীর কমান্ড্যান্ট এসেছেন পরিদর্শনে। আগামী অর্থ বছর থেকে আনসার সদস্যদের নিয়োগ করতে পারব। কিন্তু এই মুহুর্তে যে অবস্থা-তাতে প্রতিদিন যদি কিছু সময়ের জন্যও তারা এসে আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে রাখে-তাহলে আমরা সুন্দর ভাবে চিকিৎসা সেবা প্রদান করতে পারব।