Dhaka , Saturday, 18 May 2024
নিবন্ধন নাম্বারঃ ১১০, সিরিয়াল নাম্বারঃ ১৫৪, কোড নাম্বারঃ ৯২
শিরোনাম ::
নির্বাচনী প্রচারণার সময় ককটেল বিস্ফোরনের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন।। সড়কের শৃংখলা নিয়ে মতবিনিময় করেছেন ওয়ারী ট্রাফিক পুলিশ।। রূপগঞ্জে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থীর পক্ষে প্রচারনা।। সুন্দরগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন চেয়ারম্যান প্রার্থী সফিউল ইসলাম।। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে দুর্গাপুরে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত।। আনোয়ার খাঁন মডার্ণ ডায়াগনস্টিক সেন্টার রামগঞ্জ শাখার শুভ উদ্বোধন।।  প্রধানমন্ত্রীর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে ইবিতে ছাত্রলীগের আনন্দ মিছিল।। তিতাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত।। যমুনায় সিবিএ নির্বাচন- রবিউল সভাপতি শাহজাহান সম্পাদক নির্বাচিত।। আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব হলেন রামগঞ্জের কৃতি সন্তান আবদুর রহমান খাঁন।। মোরেলগঞ্জের পোলেরহাট বাজারে আগুনে ১১ টি দোকান পুড়ে ছাই-ক্ষতির পরিমান কোটি টাকা।। শরীয়তপুরে রাসেলস ভাইপার সাপ পিটিয়ে মারলো কৃষকরা।। ২২ বছর পর স্ত্রী হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত স্বামী গ্রেপ্তার।। জাজিরায় মাতৃদুগ্ধ বিষয়ে অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত।। ধামরাই সরকারি কলেজের অনার্স ৪র্থ বর্ষের শিক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠিত।। মোরেলগঞ্জে তরুণ সংঘ ক্লাবের উদ্যোগে অধ্যক্ষ শাহাবুদ্দিন তালুকদারের স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত।। পাবনায় ফ্যানের বাতাসে ধান উড়াতে গি‌য়ে কৃষকের মৃত্যু।। মাদারীপুরে ভোক্তা অধিকারে অভিযান- দুই ব্যবসায়ীকে জরিমানা।। মোটরসাইকেল মার্কার উৎসবমুখর উঠান বৈঠক।। নারায়ণগঞ্জ টিভি সাংবাদিক ফোরামের ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা।। জাজিরা পৌর সড়কে বছর পেরোলেও আলোর মুখ দেখেনি আলোকসজ্জা প্রকল্প।। রামগঞ্জে আনারস প্রতীকের উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত।। পাবনায় পানি উন্নয়ন বোর্ডে -পাউবো- কর্মরত ৩৭ কর্মকর্তা-কর্মচারী একযোগে বদলি আবেদনে সমালোচনার ঝড়।। মোংলায় বীর মুক্তিযোদ্ধা আ: হামিদ শেখ কে গার্ড অব অনার।। দেবহাটায় পুষ্টি সপ্তাহ উদ্যাপন।। সখিপুর ইউনিয়ন স্ট্যান্ডিং কমিটির সভা।। দেবহাটা বাল্যবিবাহ ও নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে সভা।।  ঘুম থেকে উঠছে দেখতাম অস্ত্র আমাদের দিকে তাককরা- নাবিক রাজু।। দাউদকান্দিতে আইফোন না পেয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে এক কিশোরের আত্মহত্যা।। আটঘরিয়ায় হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে মোটরসাইকেল-ঘোড়া।।

সুন্দরগঞ্জে কেজি স্কুলে খোলা আকাশের নিচে চলছে পাঠদান।।

  • Reporter Name
  • আপডেট সময় : 12:37:06 pm, Sunday, 21 April 2024
  • 21 বার পড়া হয়েছে

সুন্দরগঞ্জে কেজি স্কুলে খোলা আকাশের নিচে চলছে পাঠদান।।

হযরত বেল্লাল
সুন্দরগঞ্জ-গাইবান্ধা-প্রতিনিধি।।
কেজি স্কুলে তাপদহ নেই-চলছে পাঠদান-এর দায় কার-ওরা কি শিশু না? প্রচন্ড তাপদহের কারণে সরকারের নির্দেশনায় মোতাবেক শিক্ষা অধিদপ্তর  প্রাথমিক স্কুল-মাদ্রাসা-মাধ্যমিক স্কুল ও কলেজ এক সপ্তাহের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছেন। সে মোতাবেক আগামি ২৭ এপ্রিল পর্যন্ত  শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। কিন্তু অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার কেজি স্কুল সমুহ সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে প্রচন্ড তাপদহের মধ্যেও প্রতিষ্ঠানগুলো খোলা রেখেছেন কর্তৃপক্ষ। এনিয়ে নানা মহলে চলছে জল্পনা কল্পনা। সচেতন মহলের দাবি প্রাথমিক স্কুল-মাদ্রাসা-মাধ্যমিক স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীদের চেয়ে কেজি স্কুলের শিক্ষার্থীরা বয়সে ছোট এবং কমলমতি। তাপদহে তাদের বেশি ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। অথচ সেইসব শিশুদের কেজি স্কুল খোলা রাখা হয়েছে। এর দায় কে নিবে। 
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, একটি পৌরসভা ও ১৫টি ইউনিয়নে ১১৭টি কেজি স্কুল রয়েছে। শিক্ষার্থীর সংখ্যা কমপক্ষে ২ হাজার ৫০০ জন। বেশিরভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে খোলামেলা অবকাঠামো এবং গাছপালা নেই।
পৌরসভার অভিভাবক স্বাধীন বসুনিয়া বলেন, তার শিশু কন্যা পৌরসভার একটি কেজি স্কুলের শিশু শ্রেণির শিক্ষার্থী। রোববার সকালে তার মেয়ে স্কুলে যাওয়ার জন্য তৈরি হয়ে তাকে ঘুম থেকে ডেকে তোলে। বাবা তার মেয়ে বললেন সরকার তো স্কুল বন্ধ দিয়েছে, মেয়ে বললেন তার স্কুল বন্ধ দেয়নি। ওই অভিভাবকের দাবি কেজি স্কুল সমুহ কোন অধিদপ্তর পরিচালনা করেন। যদি তাদের কোন দপ্তর না থাকে তাহলে কি কেজি স্কুল সমুহ মনগড়া চলছে। এনিয়ে তিনি প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। 
নাম প্রকাশ না করা শর্তে পৌরসভার একটি কেজি স্কুলের একজন অধ্যক্ষ বলেন, কেজি স্কুলগুলো প্রাথমিক স্কুল সমুহের নিয়ম কানুন মেনে চলে, তবে নির্দেশনা পরিচালক ও এ্যাসোসিয়েশনের। একজন পরিচালক বন্ধ রাখলে আরেকজন খোলা রাখেন। একাধিক এ্যাসোসিয়েশন থাকার কারণে সিদ্ধান্ত নেয়া সম্ভাব হচ্ছে না। তবে প্রশাসন নির্দেশনা দিলে অবশ্যই মানতে বাধ্য থাকবে সকলে।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. আনোয়ারুল ইসলাম জানান, কেজি স্কুল সমুহ প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে বই সরবরাহ করে। কিন্তু নিয়ম কানুন তাদের নিজস্ব। সে কারণে তারা প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের নির্দেশনা মানে না। 
উপজেলা নিবার্হী অফিসার মো. তরিকুল ইসলাম জানান-কেজি স্কুল সমুহ বন্ধের ব্যাপারে উপজেলা প্রশাসনের নিকট কো নির্দেশনা আসে নাই। সরকারি নির্দেশনা আসলে প্রতিপালন করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল ও অন্যান্য তথ্য সঞ্চয় করে রাখুন

জনপ্রিয় সংবাদ

রূপগঞ্জে বস্ত্র ও পাটমন্ত্রীর নির্দেশে নির্মিত চার সড়কের উদ্বোধন।।

পেকুয়ায় বেড়িবাঁধ ভেঙে লোকালয়ে প্লাবিত,২ শত পরিবার পানিবন্দী।।

নির্বাচনী প্রচারণার সময় ককটেল বিস্ফোরনের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন।।

সুন্দরগঞ্জে কেজি স্কুলে খোলা আকাশের নিচে চলছে পাঠদান।।

আপডেট সময় : 12:37:06 pm, Sunday, 21 April 2024
হযরত বেল্লাল
সুন্দরগঞ্জ-গাইবান্ধা-প্রতিনিধি।।
কেজি স্কুলে তাপদহ নেই-চলছে পাঠদান-এর দায় কার-ওরা কি শিশু না? প্রচন্ড তাপদহের কারণে সরকারের নির্দেশনায় মোতাবেক শিক্ষা অধিদপ্তর  প্রাথমিক স্কুল-মাদ্রাসা-মাধ্যমিক স্কুল ও কলেজ এক সপ্তাহের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছেন। সে মোতাবেক আগামি ২৭ এপ্রিল পর্যন্ত  শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। কিন্তু অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার কেজি স্কুল সমুহ সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে প্রচন্ড তাপদহের মধ্যেও প্রতিষ্ঠানগুলো খোলা রেখেছেন কর্তৃপক্ষ। এনিয়ে নানা মহলে চলছে জল্পনা কল্পনা। সচেতন মহলের দাবি প্রাথমিক স্কুল-মাদ্রাসা-মাধ্যমিক স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীদের চেয়ে কেজি স্কুলের শিক্ষার্থীরা বয়সে ছোট এবং কমলমতি। তাপদহে তাদের বেশি ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। অথচ সেইসব শিশুদের কেজি স্কুল খোলা রাখা হয়েছে। এর দায় কে নিবে। 
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, একটি পৌরসভা ও ১৫টি ইউনিয়নে ১১৭টি কেজি স্কুল রয়েছে। শিক্ষার্থীর সংখ্যা কমপক্ষে ২ হাজার ৫০০ জন। বেশিরভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে খোলামেলা অবকাঠামো এবং গাছপালা নেই।
পৌরসভার অভিভাবক স্বাধীন বসুনিয়া বলেন, তার শিশু কন্যা পৌরসভার একটি কেজি স্কুলের শিশু শ্রেণির শিক্ষার্থী। রোববার সকালে তার মেয়ে স্কুলে যাওয়ার জন্য তৈরি হয়ে তাকে ঘুম থেকে ডেকে তোলে। বাবা তার মেয়ে বললেন সরকার তো স্কুল বন্ধ দিয়েছে, মেয়ে বললেন তার স্কুল বন্ধ দেয়নি। ওই অভিভাবকের দাবি কেজি স্কুল সমুহ কোন অধিদপ্তর পরিচালনা করেন। যদি তাদের কোন দপ্তর না থাকে তাহলে কি কেজি স্কুল সমুহ মনগড়া চলছে। এনিয়ে তিনি প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। 
নাম প্রকাশ না করা শর্তে পৌরসভার একটি কেজি স্কুলের একজন অধ্যক্ষ বলেন, কেজি স্কুলগুলো প্রাথমিক স্কুল সমুহের নিয়ম কানুন মেনে চলে, তবে নির্দেশনা পরিচালক ও এ্যাসোসিয়েশনের। একজন পরিচালক বন্ধ রাখলে আরেকজন খোলা রাখেন। একাধিক এ্যাসোসিয়েশন থাকার কারণে সিদ্ধান্ত নেয়া সম্ভাব হচ্ছে না। তবে প্রশাসন নির্দেশনা দিলে অবশ্যই মানতে বাধ্য থাকবে সকলে।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. আনোয়ারুল ইসলাম জানান, কেজি স্কুল সমুহ প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে বই সরবরাহ করে। কিন্তু নিয়ম কানুন তাদের নিজস্ব। সে কারণে তারা প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের নির্দেশনা মানে না। 
উপজেলা নিবার্হী অফিসার মো. তরিকুল ইসলাম জানান-কেজি স্কুল সমুহ বন্ধের ব্যাপারে উপজেলা প্রশাসনের নিকট কো নির্দেশনা আসে নাই। সরকারি নির্দেশনা আসলে প্রতিপালন করা হবে।