Dhaka , Saturday, 18 May 2024
নিবন্ধন নাম্বারঃ ১১০, সিরিয়াল নাম্বারঃ ১৫৪, কোড নাম্বারঃ ৯২
শিরোনাম ::
নির্বাচনী প্রচারণার সময় ককটেল বিস্ফোরনের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন।। সড়কের শৃংখলা নিয়ে মতবিনিময় করেছেন ওয়ারী ট্রাফিক পুলিশ।। রূপগঞ্জে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থীর পক্ষে প্রচারনা।। সুন্দরগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন চেয়ারম্যান প্রার্থী সফিউল ইসলাম।। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে দুর্গাপুরে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত।। আনোয়ার খাঁন মডার্ণ ডায়াগনস্টিক সেন্টার রামগঞ্জ শাখার শুভ উদ্বোধন।।  প্রধানমন্ত্রীর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে ইবিতে ছাত্রলীগের আনন্দ মিছিল।। তিতাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত।। যমুনায় সিবিএ নির্বাচন- রবিউল সভাপতি শাহজাহান সম্পাদক নির্বাচিত।। আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব হলেন রামগঞ্জের কৃতি সন্তান আবদুর রহমান খাঁন।। মোরেলগঞ্জের পোলেরহাট বাজারে আগুনে ১১ টি দোকান পুড়ে ছাই-ক্ষতির পরিমান কোটি টাকা।। শরীয়তপুরে রাসেলস ভাইপার সাপ পিটিয়ে মারলো কৃষকরা।। ২২ বছর পর স্ত্রী হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত স্বামী গ্রেপ্তার।। জাজিরায় মাতৃদুগ্ধ বিষয়ে অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত।। ধামরাই সরকারি কলেজের অনার্স ৪র্থ বর্ষের শিক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠিত।। মোরেলগঞ্জে তরুণ সংঘ ক্লাবের উদ্যোগে অধ্যক্ষ শাহাবুদ্দিন তালুকদারের স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত।। পাবনায় ফ্যানের বাতাসে ধান উড়াতে গি‌য়ে কৃষকের মৃত্যু।। মাদারীপুরে ভোক্তা অধিকারে অভিযান- দুই ব্যবসায়ীকে জরিমানা।। মোটরসাইকেল মার্কার উৎসবমুখর উঠান বৈঠক।। নারায়ণগঞ্জ টিভি সাংবাদিক ফোরামের ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা।। জাজিরা পৌর সড়কে বছর পেরোলেও আলোর মুখ দেখেনি আলোকসজ্জা প্রকল্প।। রামগঞ্জে আনারস প্রতীকের উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত।। পাবনায় পানি উন্নয়ন বোর্ডে -পাউবো- কর্মরত ৩৭ কর্মকর্তা-কর্মচারী একযোগে বদলি আবেদনে সমালোচনার ঝড়।। মোংলায় বীর মুক্তিযোদ্ধা আ: হামিদ শেখ কে গার্ড অব অনার।। দেবহাটায় পুষ্টি সপ্তাহ উদ্যাপন।। সখিপুর ইউনিয়ন স্ট্যান্ডিং কমিটির সভা।। দেবহাটা বাল্যবিবাহ ও নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে সভা।।  ঘুম থেকে উঠছে দেখতাম অস্ত্র আমাদের দিকে তাককরা- নাবিক রাজু।। দাউদকান্দিতে আইফোন না পেয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে এক কিশোরের আত্মহত্যা।। আটঘরিয়ায় হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে মোটরসাইকেল-ঘোড়া।।

নীল মোহন রায়ের  তম  ৪২ তম বার্ষিকী পালিত।।

  • Reporter Name
  • আপডেট সময় : 10:49:42 am, Monday, 8 April 2024
  • 82 বার পড়া হয়েছে

নীল মোহন রায়ের  তম  ৪২ তম বার্ষিকী পালিত।।

অরবিন্দ রায়

স্টাফ রিপোর্টার।।

গোলয়া গ্রামের শিক্ষক, সমাজসেবক, হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক, নীল মোহন রায়ের  ৪২’তম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত হয়েছে।

মহান এই  ব্যক্তি শিক্ষকতা পেশায় নিজেকে নিয়োজিত করে প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে শিক্ষা আলো ছড়িয়ে দিয়েছেন। যখন গ্রামাঞলে মানুষের শিক্ষার প্রতি আগ্রহ কম ছিল । তখন তিনি পড়াশোনা  করার জন্য মানুষ কে উৎসাহ দিতেন।
হোমিওপ্যাথি চিকিৎসক হিসেবে তিনি  মানুষের সেবা করেছেন। বড়ই বাড়ি, গোলয়া, ডাকুরাই, কোন্দাঘাটা,  বোয়ালীসহ বিভিন্ন  গ্রামের মানুষ সকালে বাড়িতে ভীড় জমত। শিশুদের ঠান্ডাসহ  বিভিন্ন রোগের ঔষধ খেলে কাজ করত। শিক্ষক নীলমোহন রায় আজ বেঁচে নেই তবু্ও মানুষের অন্তরে বেঁচে  আছেন।

শিক্ষক নীল মোহন রায় বড়বাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বোয়ালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মৃত্যুর পূর্ব মূহুর্ত পর্যন্ত শিক্ষকা করেছেন। তিনি ১০ অক্টোবর ১৯৮২ সালে মৃত্য বরন করেন।

শিক্ষক  নীল মোহন রায়ের   তিন ছেলে, তিন মেয়ে। এ পরিবারে শিশু ছাড়া কেউ গ্যাজুয়েশন ডিগ্রির নিচে কেউ নেই । একই পরিবারে তিন ভাইয়ের মধ্যে দুই ভাই ডক্টরেট ডিগ্রী অর্জন করেছেন।  দুই  বোন এম বি বি এস  ডিগ্রী অর্জন করেছেন। বড় ছেলে ড. রাম দুলাল রায়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে  পড়াশোনা শেষ করেছেন । পরে তিনি জাহাঙ্গীরনর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে  প্রথম পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেছেন।  মেজ  ছেলে  চিও রঞ্জন  রায় বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় পড়াশোনা করেছেন। পরে তিনি বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি  অর্জন করেন। ছোট ছেলে জা. বি থেকে বি, কম অর্নাস এম, কম পাশ করেছেন। একই  পরিবারে দুই মেয়ে  এম বি বি এস ডাক্তার এক মেয়ের জামাই এম বি এস ডাক্তার, এক মেয়ের জামাই সহকারী কমিশনার ভূমি। একই পরিবারের তিন ছেলের  বউ শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত। এই পরিবারের শিশু ছাড়া কেউ এম এ পাশের নিচে নাই। আলোকিত একই পরিবারের সকলকেই এলাকায় সম্মানিত ব্যক্তি হিসেবে পরিচিত।

শিক্ষক নীলমোহন রায় অসময়ে পরপারে চলে  যাওয়ায় পরিবারের, সমাজের, দেশের আলোকিত মানুষের গড়ে তুলতে সহযোগিতা করতে পারতেন।
শিক্ষক নীল মোহন রায়ের মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে আজ সকালে গীতা পাঠ  সত্য রঞ্জন চক্রবর্তী, সহযোগীয় ছিলেন নেপাল চন্দ্র  চক্রবর্তী। গীত পাঠ শেষে মধ্যহ্ন ভোজ ৪ শত মানুষের মধ্যে বিতরন  করা হয়।

ব্যবস্যায়ী উৎপল রক্ষিত জানান, নীনমোহন স্যার ছিলেন একজন আর্দশ মানুষ। তিনি নিজের পরিবারে সদস্যদের শিক্ষায় আলোকিত করেছেন।  মৃত্যু ৪২ ব মানুষের মনে বেঁচে আছেন। এখনো স্যারের প্রাক্তন ছাএদের মুখে তার কীর্তিময় আলোকিত জীবনের কথা  শোনতে পাই। মৃত্যু বার্ষিকীতে উপস্থিত থাকতে পেরে আমি গর্বিত। তার আত্নার শান্তি কামনা করি।

শিক্ষক নীল মোহন রায়ের মৃত্যু বার্ষিকী তে স্হানীয়  বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা কর্মী, সমাজ সেবক, গ্রামবাসী, প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা শ্রদ্ধা জানিয়েছেন।

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল ও অন্যান্য তথ্য সঞ্চয় করে রাখুন

জনপ্রিয় সংবাদ

রূপগঞ্জে বস্ত্র ও পাটমন্ত্রীর নির্দেশে নির্মিত চার সড়কের উদ্বোধন।।

পেকুয়ায় বেড়িবাঁধ ভেঙে লোকালয়ে প্লাবিত,২ শত পরিবার পানিবন্দী।।

নির্বাচনী প্রচারণার সময় ককটেল বিস্ফোরনের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন।।

নীল মোহন রায়ের  তম  ৪২ তম বার্ষিকী পালিত।।

আপডেট সময় : 10:49:42 am, Monday, 8 April 2024

অরবিন্দ রায়

স্টাফ রিপোর্টার।।

গোলয়া গ্রামের শিক্ষক, সমাজসেবক, হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক, নীল মোহন রায়ের  ৪২’তম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত হয়েছে।

মহান এই  ব্যক্তি শিক্ষকতা পেশায় নিজেকে নিয়োজিত করে প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে শিক্ষা আলো ছড়িয়ে দিয়েছেন। যখন গ্রামাঞলে মানুষের শিক্ষার প্রতি আগ্রহ কম ছিল । তখন তিনি পড়াশোনা  করার জন্য মানুষ কে উৎসাহ দিতেন।
হোমিওপ্যাথি চিকিৎসক হিসেবে তিনি  মানুষের সেবা করেছেন। বড়ই বাড়ি, গোলয়া, ডাকুরাই, কোন্দাঘাটা,  বোয়ালীসহ বিভিন্ন  গ্রামের মানুষ সকালে বাড়িতে ভীড় জমত। শিশুদের ঠান্ডাসহ  বিভিন্ন রোগের ঔষধ খেলে কাজ করত। শিক্ষক নীলমোহন রায় আজ বেঁচে নেই তবু্ও মানুষের অন্তরে বেঁচে  আছেন।

শিক্ষক নীল মোহন রায় বড়বাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বোয়ালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মৃত্যুর পূর্ব মূহুর্ত পর্যন্ত শিক্ষকা করেছেন। তিনি ১০ অক্টোবর ১৯৮২ সালে মৃত্য বরন করেন।

শিক্ষক  নীল মোহন রায়ের   তিন ছেলে, তিন মেয়ে। এ পরিবারে শিশু ছাড়া কেউ গ্যাজুয়েশন ডিগ্রির নিচে কেউ নেই । একই পরিবারে তিন ভাইয়ের মধ্যে দুই ভাই ডক্টরেট ডিগ্রী অর্জন করেছেন।  দুই  বোন এম বি বি এস  ডিগ্রী অর্জন করেছেন। বড় ছেলে ড. রাম দুলাল রায়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে  পড়াশোনা শেষ করেছেন । পরে তিনি জাহাঙ্গীরনর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে  প্রথম পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেছেন।  মেজ  ছেলে  চিও রঞ্জন  রায় বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় পড়াশোনা করেছেন। পরে তিনি বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি  অর্জন করেন। ছোট ছেলে জা. বি থেকে বি, কম অর্নাস এম, কম পাশ করেছেন। একই  পরিবারে দুই মেয়ে  এম বি বি এস ডাক্তার এক মেয়ের জামাই এম বি এস ডাক্তার, এক মেয়ের জামাই সহকারী কমিশনার ভূমি। একই পরিবারের তিন ছেলের  বউ শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত। এই পরিবারের শিশু ছাড়া কেউ এম এ পাশের নিচে নাই। আলোকিত একই পরিবারের সকলকেই এলাকায় সম্মানিত ব্যক্তি হিসেবে পরিচিত।

শিক্ষক নীলমোহন রায় অসময়ে পরপারে চলে  যাওয়ায় পরিবারের, সমাজের, দেশের আলোকিত মানুষের গড়ে তুলতে সহযোগিতা করতে পারতেন।
শিক্ষক নীল মোহন রায়ের মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে আজ সকালে গীতা পাঠ  সত্য রঞ্জন চক্রবর্তী, সহযোগীয় ছিলেন নেপাল চন্দ্র  চক্রবর্তী। গীত পাঠ শেষে মধ্যহ্ন ভোজ ৪ শত মানুষের মধ্যে বিতরন  করা হয়।

ব্যবস্যায়ী উৎপল রক্ষিত জানান, নীনমোহন স্যার ছিলেন একজন আর্দশ মানুষ। তিনি নিজের পরিবারে সদস্যদের শিক্ষায় আলোকিত করেছেন।  মৃত্যু ৪২ ব মানুষের মনে বেঁচে আছেন। এখনো স্যারের প্রাক্তন ছাএদের মুখে তার কীর্তিময় আলোকিত জীবনের কথা  শোনতে পাই। মৃত্যু বার্ষিকীতে উপস্থিত থাকতে পেরে আমি গর্বিত। তার আত্নার শান্তি কামনা করি।

শিক্ষক নীল মোহন রায়ের মৃত্যু বার্ষিকী তে স্হানীয়  বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা কর্মী, সমাজ সেবক, গ্রামবাসী, প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা শ্রদ্ধা জানিয়েছেন।