Dhaka , Sunday, 21 July 2024
নিবন্ধন নাম্বারঃ ১১০, সিরিয়াল নাম্বারঃ ১৫৪, কোড নাম্বারঃ ৯২
শিরোনাম ::
কোটা সংস্কার আন্দোলন -ময়মনসিংহে লাঠিসোটা হাতে শিক্ষার্থীদের রাস্তা অবরোধ- বিজিবি মোতায়েন।। শরীয়তপুরে ফেসবুক লাইভে এসে ছাত্রলীগ নেতার পদত্যাগ।। আমতলীতে ২য় শ্রেণির মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষণ- ধর্ষক আটক।। সিলেট জেলা কর আইনজীবী সমিতির বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ।। যাত্রাবাড়ীতে রণক্ষেত্র, টোল প্লাজায় আগুন।। শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখার আহ্বান পুলিশের।। কোটা সংস্কার আন্দোলন- বিক্ষোভে উত্তাল ইবি- ছাত্রলীগের কার্যালয় ভাঙচুর।। চট্টগ্রামে কোটা সংস্কার আন্দোলনে নিহতদের স্মরণে মহানগর বিএনপির গায়েবানা জানাজা।। লালপুরে পদ্মায় গোসলে নেমে ৩ শিশু নিখোঁজ ২ জনের মরদেহ উদ্ধার।। রূপগঞ্জে মামলা তুলে না নেয়ায় বাদীর বাড়ীঘরে হামলা- ভাংচুর- আগুন ১ জনকে কুপিয়ে জখম।। রাতে পোষ্ট- ভোরে তিন যুবক গ্রেফতার।। কালিয়াকৈরে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সন্তানদের প্রতিবাদ সমাবেশ  অনুষ্ঠিত।। নগরীর অলিগলি হতে মুল সড়ক ব্যাটারি চালিত অবৈধ অটোরিকশার দখলে।। ফরিদপুরে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের সাথে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া।। তিতাসে আ.লীগের বিক্ষোভ মিছিল ও অবস্থান কর্মসূচী অনুষ্ঠিত।। লিওনেল মেসি ভক্তরা বড় দুঃসংবাদ পেলেন।। ঢাবি হলে স্বাধীনতাবিরোধী প্রেতাত্মারা তাণ্ডব চালিয়েছে – মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী।। সদরপুরে মিথ্যা সংবাদ প্রকাশের বিরুদ্ধে চেয়ারম্যানের সংবাদ সম্মেলন।। কোটা সংষ্কার আন্দোলন- রামগঞ্জে ছাত্রলীগ নেতার পদত্যাগ।। পাবনায় বিদ্যুৎপৃষ্টে স্কুল পড়ুয়া ভাইবোনের মৃত্যু।। বুধবার থেকে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ।। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা- শিক্ষার্থীদের হল ছাড়ার নির্দেশ।। কোটা আন্দোলনের নেতৃত্বে দিচ্ছে তারেক –  ওবায়দুল কাদের।। বাংলাদেশ জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ২ বাসে আগুন।। নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সারাদেশের সব স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা।। নরসিংদী কোটা সংস্করণ আন্দোলন- বাস চলাচল সাময়িক বন্ধ।। চলমান পরিস্থিতি নিয়ে জরুরি বৈঠকে যে সিদ্ধান্ত নিল ইবি প্রশাসন।। কোটা সংস্কার আন্দোলনঃময়মনসিংহেও ছাত্র-ছাত্রীদের সড়ক অবরোধ।। হিলি স্থলবন্দরে আশঙ্কাজনক ভাবে কমেছে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য- কাজ না থাকায় বিপাকে হাজার খানেক শ্রমিক-কর্মচারিরা।। সাম্যবাদী দল ও ১৪ দলীয় জোটের কেন্দ্রীয় নেতার বাড়িতে সন্ত্রাসী হামলা।।

শিক্ষকদের সর্বাত্মক কর্মবিরতিতে অচল ইবি।।

  • Reporter Name
  • আপডেট সময় : 11:57:06 am, Monday, 1 July 2024
  • 9 বার পড়া হয়েছে

শিক্ষকদের সর্বাত্মক কর্মবিরতিতে অচল ইবি।।

ইবি প্রতিনিধি।।

   

    
অর্থ মন্ত্রণালয়ের জারিকৃত সার্বজনীন পেনশনের প্রত্যয় স্কিম প্রত্যাহারসহ তিন দফা দাবিতে আজ সোমবার -১ জুলাই- থেকে সর্বাত্মক কর্মবিরতি পালন করছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় -ইবি- শিক্ষক সমিতি। রোববার পর্যন্ত পরীক্ষাসমূহ কর্মবিরতির আওতামুক্ত থাকলেও আজ থেকে সকল ধরনের একাডেমিক ও দপ্তরিক কাজ বর্জন করেছেন শিক্ষকরা। ফলে শিক্ষকদের আন্দোলনে একরকম অচল অবস্থা বিরাজ করছে বিশ্ববিদ্যালয়ে।

সরেজমিনে দেখা যায়, রুটিন অনুযায়ী বিশ^বিদ্যালয়ের বাসগুলো চললেও কর্মবিরতির কারণে শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে আসেননি। কয়েকটি বাসে গুটিকয়েক শিক্ষার্থীর দেখা মিললেও অধিকাংশ বাসই খালি অবস্থায় ক্যাম্পাসে প্রবেশ করতে দেখা গেছে। এতে খোলার দিনেও বিশ্ববিদ্যালয়ে বিরাজ করছে সুনসান নীরবতা। ক্লাসরুমসহ বিভিন্ন অফিসে নেই সেই চিরচেনা ব্যস্ততা।

এদিকে শিক্ষকরা ক্যাম্পাসে উপস্থিত হলেও কোনো একাডেমিক ও দপ্তরিক কাজে অংশ নেননি। বেলা ১২টায় অনুষদ ভবনের নীচতলায় অবস্থান নিয়ে একঘন্টার অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন তারা। কর্মসূচিতে দলমত নির্বিশেষে সব শিক্ষকই এ প্রজ্ঞাপন বাতিলের দাবি জানান। অন্যদিকে একই দাবিতে কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও অফিস বর্জন করে প্রশাসন ভবনের ফটকে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন। ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কাজেও স্থবিরতা দেখা দিয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক আবুল কালাম আজাদ বলেন- রুটিন অনুযায়ী চারটি বিভাগের পরীক্ষা হওয়ার কথা থাকলেও শুধুমাত্র একটি বিভাগের মানোন্নয়ন পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এছাড়া আজকে কোনো ফাইলও আসেনি এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র উত্তোলনের জন্য কোনো শিক্ষার্থীও আসেনি।  

এদিকে আন্দোলনের বিষয়ে ইবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন বলেন- আমরা বাধ্য হয়ে আজকের সর্বাত্মক আন্দোলনে নেমেছি। আমরা কখনও চাই না শিক্ষার্থীরা ক্ষতিগ্রস্থ হোক। কিন্তু আমাদের দেওয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। এই স্কিমের ফলে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম শিক্ষকতা পেশার প্রতি আগ্রহ হারাবে।

তিনি আরও বলেন- এটি শুধু আমাদের জন্য নয়, বর্তমান শিক্ষার্থী যারা ভবিষ্যতে চাকুরীজীবনে প্রবেশ করবে তাদের জন্যও। এটা সম্পূর্ণ সরকারের হাতে। তারা চাইলেই এই কর্মসূচি প্রলম্বিত করতে পারে আবার শর্ট টাইমে স্কিম প্রত্যাহার করে আমাদের কর্মসূচির অবসান করতে পারে।

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল ও অন্যান্য তথ্য সঞ্চয় করে রাখুন

জনপ্রিয় সংবাদ

রূপগঞ্জে বস্ত্র ও পাটমন্ত্রীর নির্দেশে নির্মিত চার সড়কের উদ্বোধন।।

পেকুয়ায় বেড়িবাঁধ ভেঙে লোকালয়ে প্লাবিত,২ শত পরিবার পানিবন্দী।।

কোটা সংস্কার আন্দোলন -ময়মনসিংহে লাঠিসোটা হাতে শিক্ষার্থীদের রাস্তা অবরোধ- বিজিবি মোতায়েন।।

শিক্ষকদের সর্বাত্মক কর্মবিরতিতে অচল ইবি।।

আপডেট সময় : 11:57:06 am, Monday, 1 July 2024

ইবি প্রতিনিধি।।

   

    
অর্থ মন্ত্রণালয়ের জারিকৃত সার্বজনীন পেনশনের প্রত্যয় স্কিম প্রত্যাহারসহ তিন দফা দাবিতে আজ সোমবার -১ জুলাই- থেকে সর্বাত্মক কর্মবিরতি পালন করছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় -ইবি- শিক্ষক সমিতি। রোববার পর্যন্ত পরীক্ষাসমূহ কর্মবিরতির আওতামুক্ত থাকলেও আজ থেকে সকল ধরনের একাডেমিক ও দপ্তরিক কাজ বর্জন করেছেন শিক্ষকরা। ফলে শিক্ষকদের আন্দোলনে একরকম অচল অবস্থা বিরাজ করছে বিশ্ববিদ্যালয়ে।

সরেজমিনে দেখা যায়, রুটিন অনুযায়ী বিশ^বিদ্যালয়ের বাসগুলো চললেও কর্মবিরতির কারণে শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে আসেননি। কয়েকটি বাসে গুটিকয়েক শিক্ষার্থীর দেখা মিললেও অধিকাংশ বাসই খালি অবস্থায় ক্যাম্পাসে প্রবেশ করতে দেখা গেছে। এতে খোলার দিনেও বিশ্ববিদ্যালয়ে বিরাজ করছে সুনসান নীরবতা। ক্লাসরুমসহ বিভিন্ন অফিসে নেই সেই চিরচেনা ব্যস্ততা।

এদিকে শিক্ষকরা ক্যাম্পাসে উপস্থিত হলেও কোনো একাডেমিক ও দপ্তরিক কাজে অংশ নেননি। বেলা ১২টায় অনুষদ ভবনের নীচতলায় অবস্থান নিয়ে একঘন্টার অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন তারা। কর্মসূচিতে দলমত নির্বিশেষে সব শিক্ষকই এ প্রজ্ঞাপন বাতিলের দাবি জানান। অন্যদিকে একই দাবিতে কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও অফিস বর্জন করে প্রশাসন ভবনের ফটকে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন। ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কাজেও স্থবিরতা দেখা দিয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক আবুল কালাম আজাদ বলেন- রুটিন অনুযায়ী চারটি বিভাগের পরীক্ষা হওয়ার কথা থাকলেও শুধুমাত্র একটি বিভাগের মানোন্নয়ন পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এছাড়া আজকে কোনো ফাইলও আসেনি এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র উত্তোলনের জন্য কোনো শিক্ষার্থীও আসেনি।  

এদিকে আন্দোলনের বিষয়ে ইবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন বলেন- আমরা বাধ্য হয়ে আজকের সর্বাত্মক আন্দোলনে নেমেছি। আমরা কখনও চাই না শিক্ষার্থীরা ক্ষতিগ্রস্থ হোক। কিন্তু আমাদের দেওয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। এই স্কিমের ফলে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম শিক্ষকতা পেশার প্রতি আগ্রহ হারাবে।

তিনি আরও বলেন- এটি শুধু আমাদের জন্য নয়, বর্তমান শিক্ষার্থী যারা ভবিষ্যতে চাকুরীজীবনে প্রবেশ করবে তাদের জন্যও। এটা সম্পূর্ণ সরকারের হাতে। তারা চাইলেই এই কর্মসূচি প্রলম্বিত করতে পারে আবার শর্ট টাইমে স্কিম প্রত্যাহার করে আমাদের কর্মসূচির অবসান করতে পারে।